জুড়ী উপজেলা নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান পদে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ : পুনঃনির্বাচনের দাবী

0
198
বিডিজাগরণ২৪.কমঃ গত ১৮ মার্চ অনুষ্ঠিত জুড়ী উপজেলা নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান পদ প্রার্থী মাওলানা মোহাম্মদ আব্দুল শহীদ কারচুপির মাধ্যমে তার নিশ্চিত বিজয় ছিনিয়ে নেয়ার অভিযোগ এনে ভোট পুনঃগণনা-পুনঃনির্বাচনের দাবী জানিয়েছেন।

 

গত ২০ মার্চ বিকেলে মৌলভীবাজার জেলা সাংবাদিক ফোরাম কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ দাবী জানান।
মৌলভীবাজার জেলার জুড়ী উপজেলার জায়ফরনগর ইউনিয়নের চাটেরা গ্রামের অধিবাসী মৃত জোয়াদ আলীর পুত্র মাওলানা মোহাম্মদ আব্দুল শহীদ তার লিখিত বক্তব্যে জানান উপজেলা নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে ভাইস চেয়ারম্যান পদে বাল্ব মার্কা নিয়ে তিনি প্রতিদ্বন্দ্বীতা করেন। জুড়ী উপজেলার সর্বস্তরের মানুষ তাকে সমর্থন দিয়েছিল। যার প্রমাণ বিভিন্ন মিডিয়া, অনলাইন, ইলেক্ট্রনিক, স্থানীয় ও জাতীয় পত্রিকাসহ বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংস্থার জরিপেও তার স্থান সবার উপরে ছিল। তাকে ভোট দেয়ার জন্য ব্যাপক সংখ্যক ভোটার ভোট কেন্দ্রে হাজির হয়েছিলেন। কিন্তু কারচুপির মাধ্যমে হিসাবে গড়মিল, গণনায় অনিয়ম, ফলাফল ঘোষনায় অনিয়মের মাধ্যমে তার নিশ্চিত বিজয় ছিনিয়ে নেয়া হয়েছে। যার বিভিন্ন প্রমাণ তার কাছে আছে। জুড়ী উপজেলার সর্বস্থরের জনগন ও তা মেনে নিতে পারছে না। কিছু কিছু প্রিজাইডিং অফিসার বিশেষ মহলের হয়ে কাজ করেন। কৌশলে তার এজেন্টদের নিকট ফলাফল শীট সরবরাহ করেন নাই বরং তাদের সাথে দুর্ব্যবহার করে ভোট কেন্দ্র থেকে বের করে দেয়া হয়েছে। বাগান এলাকার ভোটার লিষ্ট মুসলিম অধ্যুষিত কেন্দ্র বেলাগাঁও এ দেওয়া হয়, যার কারনে ভোটাররা প্রায় দুই ঘন্টা ভোট দিতে পারে নাই এবং অনেক ভোটার ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে না পেরে চলে যায়। গণনাকারী বিশেষমহল তার ভোট অন্য ভোটের বান্ডিলে ঢুকিয়ে দেয়। ৪১টি কেন্দ্রের মধ্যে ৪০টি কেন্দ্রের ফলাফল ঘোষণা করা হয়েছে কিন্তু ১টি কেন্দ্রের ফলাফল ঘোষণা করা হয় নাই। এলবিন টিলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও রাজকী চা বাগান সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ অন্যান্য কয়েকটি কেন্দ্রে মৌখিকভাবে ঘোষণা দিয়ে ফলাফল শীট না দিয়েই কর্মকর্তারা ভোট কেন্দ্র থেকে চলে যান। কন্ট্রোলরুমে ফলাফল প্রকাশের এক পর্যায়ে তিনি বিপুল ভোটে এগিয়ে ছিলেন। কিন্তু বিশেষ মহলের অদৃশ্য প্রভাবে কাকে রাখবে সেই দর কষাকষির এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে বাক বিতন্ডা, হাতাহাতি ও গুলি ছুড়াছুড়ির ফাকে তার ভোট কম দেখিয়ে ফল ঘোষণা করা হয় ।
বিষয়টি সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে ভোট পুনঃগণনা/ পুনঃনির্বাচন না হলে মানববন্ধনসহ আইনগত ব্যবস্থা নেয়া ছাড়া জুড়ীবাসীর কোন বিকল্প থাকবে না বলে তিনি জানান।

LEAVE A REPLY