মেয়েরাও যৌতুক নেয়! : দিপু মণি

0
56
আজকাল কাবিনও এক ধরনের যৌতুক হয়ে গেছে । ছেলে মাসে ইনকাম করে ৩০০০০ হাজার কিন্তু কাবিন ধরে ১০_২০ লক্ষ!
ধরি, প্রতি মাসে ছেলে জমায় ২০০০০ টাকা, বিয়ের খরচ বাদ দিলাম , তার মানে প্রায় পাঁচ বছর ধরে টাকা জমালে ছেলে শুধু কাবিনের টাকা জমাতে পারবে ! আর বিয়ের খরচ জমাতে গেলে ছেলের তো, নিজের ছেলে বিয়ে দেবার বয়সে বিয়ে করা লাগবে !
অনেকেই বলে কাবিন এর টাকা বেশি মানে মেয়ের সিকিউরিটি মানি, সামাজিক নিরাপত্তা ! প্রশ্ন হল, বিয়ে তো একটা স’ম্পর্ক সেখানে লেনদেন করে কিভাবে সামাজিক নিরাপত্তা নিশ্চিত হয় ? টাকা বেশি মানে মেয়ে সুখী হবে এই নিশ্চয়তা কেউ দিতে পারবে ?
বিয়ের পরে যদি ছেলে স্বামী হিসেবে ভাল না হয়, থাকতে না চায় তখন সেই সিকিউরিটি মানি দিয়া কি অন্য একটা ভাল জামাই কেনা যায়?
ভালবাসা থাকলে ১০১ টাকা কাবিনে বিয়ে হতে পারে কিংবা ছেলের যা ক্ষমতা সেই অনুযায়ীও হতে পারে।
কেউ যদি ধ’র্ম অনুযায়ী বিয়ে করে তাতে আমা’র কোন আ’পত্তি নেই। কিন্তু আজকাল বিয়ের মধ্যে এই আর্থিক লেনদেন গলার কা’টা হয়ে যাচ্ছে।
উপহারের নামে যৌতুক যেমন বৈধ হয়েছে ঠিক তেমনি সামাজিকতার নামে আজকাল সাধ্যের বাইরে কাবিনও বৈধ হয়ে গেছে।
মেয়ে যদি মনে করে, কাবিনের টাকা বেশি হলে তার নিরাপত্তা নিশ্চিত হবে তাহলে বিয়ে না করে বরং আয় রোজগার করার বিভিন্ন উপায় ভাবা উচিৎ ।
আর ছেলের যদি সামাজিকতা দেখানোর জন্য মেয়ে কে সাধ্যের বাইরে কাবিন দিয়ে বিয়ে করা লাগে,তবে তার বিয়ে না করে আজীবন একা থাকাই ভাল।
ডাঃ দিপু মণি
মাননীয় শিক্ষামন্ত্রী
গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার

LEAVE A REPLY