দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা শ্রীমঙ্গলে : ৫.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস

195
শীতের হিমেল হাওয়া ও ঘন কুয়াশায় আচ্ছন্ন শ্রীমঙ্গল
বাংলামেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে শ্রীমঙ্গলে। মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে রেকর্ড করা তাপমাত্রা ৫.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এটি বিগত ৫ বছরের ইতিহাসে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা।
১ ফেব্রুয়ারী সকালে শ্রীমঙ্গল আবহাওয়া অফিসের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আনিসুর রহমান জানিয়েছেন গত ২০১৫ সালের পর ২০২১ সালে এসে শ্রীমঙ্গলে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে। সোমবার সকাল ৯টায় এ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়।
শীতের তিব্রতায় ভোগান্তিতে পড়তে হয়েছে নিম্ন আয়ের মানুষদের। চা বাগান বেস্টিত পাহাড়ী এলাকায় নিম্নআয়ের চা শ্রমিক জনসংখ্যা বেশী। যাদের ঘর এবং শীতের পোষাক দুটুরই সংকট রয়েছে।
এর মধ্যে অতি মাত্রায় শীতের প্রকোপ বৃদ্ধি পাওয়ায় দিনমজুর, কৃষিশ্রমিক, চা-শ্রমিক শিশু ও বৃদ্ধরা বেশী দূরবস্থায় নিদ্রা যাপন করছেন। কন কনে শীতে পাহাড়ী ও হাওর পাড়ের মানুষের জনজীবন চরম কষ্ঠে অতিবাহিত হচ্ছে।
শীতের তিব্রতায় বস্তাই সম্বল
তাদের টিনের বা ছনের চাল, বাঁশ, টাট বা মাটির বেড়ায় শীত ও হিমেল হাওয়া আকরে ধরে। যার ফলে চা-শ্রমিক অনেক পরিবার পাটের বস্তা গায়ে জড়িয়ে শীত মোকাবেলার চেষ্টা করছেন।
অতিরিক্ত শীতের কারণে বৃদ্ধি পেয়েছে ঠান্ডা বাহিত রোগ। জ্বর, সর্দি, কাশি, শ্বাসকষ্ঠ, হাপানি, নিউমোনিয়া সহ নানা রোগ নিয়ে রোগীর সংখ্যা রেড়েছে মৌলভীবাজার ২৫০ শয়্যা হাসপাতালে। বেশী আক্রান্ত হচ্ছেন বয়স্ক ও শিশুরা।
মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা হাসপাতালের তত্মাবধায়ক পার্থ সারথী কানুনগ বিডিজাগরণ২৪ কে জানান শীতের তিব্রতা বাড়ার পাশাপাশী রোগীর সংখ্যা বেড়েছে। তবে এখনও হাসপাতালের ধারণ ক্ষমতার মধ্যে রয়েছে। বিগত শীতে যে হারে রোগীর সংখ্যা বেড়েছিলো সে তুলনায় এখনও নিয়ন্ত্রণের মধ্যে রয়েছে।
এএইচএমটি/বিডিজাগরণ২৪/মৌলভীবাজার